বুধবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৮ | ২ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

First Youth News Portal in Bangladesh

add 468*60

শিরোনাম

বিশ্ব শান্তির প্রসারে দক্ষিণ কোরিয়ার শান্তি সামিট অনুষ্ঠিত আত্মহত্যা নয়, জীবনকে উপভোগ করুন চবি ক্যাম্পাসে উজ্জ্বল রুমান কনভারশন ডিসঅর্ডার: দরকার সচেতনতা   ইউএনও’র ব্যতিক্রমী উদ্যোগ: দৃষ্টিনন্দন বিল পরিস্কার করলেন নিজেই যুদ্ধকালীন সাংবাদিকতার প্রশিক্ষণ পেলেন রবিউল হাসান ম্যানেজমেন্ট অ্যপ্রোচ ও ভিশন: মালিক-এর চাওয়া ও কর্মী’র প্রতিক্রিয়া দেখে এলাম এশিয়ার সর্ববৃহৎ ক্যাকটাস নার্সারি ওয়াইএসএসই-এর “রেজোন্যান্স-২.১ অনুষ্ঠিত নোবিপ্রবিতে ভর্তি আবেদন ১৬ই অক্টোবর পর্যন্ত বৃদ্ধি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তিযুদ্ধ    তরুণ প্রজন্মই পারে সবুজ পৃথিবী গড়তে উচ্চশিক্ষা ভাবনা, ক্যারিয়ার প্রতিবন্ধকতা ও উত্তরণ ১৭ সেপ্টেম্বর দক্ষিন কোরিয়ায়  শান্তি সামিট শুরু অনলাইনে হয়রানির শিকার হলে যা করবেন

১৭ সেপ্টেম্বর দক্ষিন কোরিয়ায়  শান্তি সামিট শুরু

সফিউল আযম

বিশ্বব্যাপী সর্বস্তরে শান্তি প্রতিষ্ঠায় বিভিন্ন আইডিয়া ও বাস্তবায়ন কৌশল আলোচনার লক্ষ্যে “Collaboration for Peace Development: Building a Peace Community through the DPCW” প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে আগামী ১৭-১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ তারিখে দক্ষিন কোরিয়ার অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে  শান্তি সামিট। এইচডব্লিউপিএল (Heavenly Culture, World Peace, Restoration of Light-HWPL)  নামক একটি বেসরকারি সংস্থা জাতিসংঘের ইকোসক (UN ECOSOC) এর অধীন ইউএনডিপিআই (UN DPI)  বিশ্বের বিভিন্ন দেশের দুই হাজার প্রতিনিধিকে আমন্ত্রণ জানিয়েছে। রাজনীতি, ধর্ম, আইন, শিক্ষা, তারুণ্য, নারী, সংবাদকর্মী ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে এইচডব্লিউপিএল বিশ্ব শান্তি সম্মেলনে (HWPL World Peace Summit ) চতুর্থ বারের মত অংশ নিতে যাচ্ছে।

আয়োজক সংস্থা এইচ ডব্লিউ পিএল বিভিন্ন আর্ন্তজাতিক সংস্থার, সরকার ও সুশীল সমাজের সঙ্গে এডভোকেসি করছে শান্তি প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে। এ বছর সামিটের মূল লক্ষ্য হলো আর্ন্তজাতিক আইনের আরো জোরদার শক্তি তৈরী করণে বিভিন্ন পক্ষের অভিজ্ঞতা আনয়ন।

যেসব এজেন্ডা নিয়ে আলোচনা হবে.১. ডিপিসিডব্লিই প্রণয়ণে জাতীয় ও আর্ন্জাতিক সমর্থন আনয়ন ২. ভবিষ্যত কর্মপরিকল্পনা প্রণয়ন ৩. শান্তি সংস্কৃতি ছড়িয়ে দেয়ার লক্ষ্যে শান্তি শিক্ষার প্রতি শিক্ষা সংশ্লিষ্টদের করণীয় নির্ধারণ ৪. নারী ও শিশুদের নেতৃত্বে শান্তি বিষয়ে প্রকল্প বাস্তবায়নে কর্মপরিকল্পনা প্রণয়ণ। ৫. সাংবাদিকদের জন্য শান্তি নেটওয়ার্ক প্লাটফর্ম গঠন।

এইচডব্লিউপিএল চেয়ারম্যান হিলি বলেন, যদি এখানে শান্তি নিয়ে কোনো উত্তর থাকে, বিশ্বের প্রতিটি পরিবারকে শান্তির বার্তা বাহক হওয়া উচিত। যুদ্ধ বন্ধ আমাদের দায়িত্ব এবং ভবিষ্যত প্রজন্মের জন্য টেকসই শান্তি আবাস স্থাপন করা।