বুধবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৮ | ২ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

First Youth News Portal in Bangladesh

add 468*60

শিরোনাম

বিশ্ব শান্তির প্রসারে দক্ষিণ কোরিয়ার শান্তি সামিট অনুষ্ঠিত আত্মহত্যা নয়, জীবনকে উপভোগ করুন চবি ক্যাম্পাসে উজ্জ্বল রুমান কনভারশন ডিসঅর্ডার: দরকার সচেতনতা   ইউএনও’র ব্যতিক্রমী উদ্যোগ: দৃষ্টিনন্দন বিল পরিস্কার করলেন নিজেই যুদ্ধকালীন সাংবাদিকতার প্রশিক্ষণ পেলেন রবিউল হাসান ম্যানেজমেন্ট অ্যপ্রোচ ও ভিশন: মালিক-এর চাওয়া ও কর্মী’র প্রতিক্রিয়া দেখে এলাম এশিয়ার সর্ববৃহৎ ক্যাকটাস নার্সারি ওয়াইএসএসই-এর “রেজোন্যান্স-২.১ অনুষ্ঠিত নোবিপ্রবিতে ভর্তি আবেদন ১৬ই অক্টোবর পর্যন্ত বৃদ্ধি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তিযুদ্ধ    তরুণ প্রজন্মই পারে সবুজ পৃথিবী গড়তে উচ্চশিক্ষা ভাবনা, ক্যারিয়ার প্রতিবন্ধকতা ও উত্তরণ ১৭ সেপ্টেম্বর দক্ষিন কোরিয়ায়  শান্তি সামিট শুরু অনলাইনে হয়রানির শিকার হলে যা করবেন

ঢাকায় ব্রাজিলের খাবার

ব্রাজিলের খাবার

২০ এপ্রিল ঢাকা রিজেন্সি হোটেল অ্যান্ড রিসোর্ট আয়োজন করেছিল ‘ব্রাজিলিয়ান উইক ফুড অ্যান্ড কালচারাল ফেস্টিভ্যাল’। ফুটবলের রাজা পেলের দেশ থেকে আগত দুজন শেফ অতিথিদের জন্য তৈরি করেছেন মুখরোচক নানা খাবার। রকমারি খাবারগুলোর মধ্যে রয়েছে ব্রাজিলিয়ান চিজ বল, পিকানা মিট উইথ কাসাভা ফ্লাওয়ার অ্যান্ড ভিনেগার সস, বানানা উইথ সিনেমন, মিট উইথ সুইট পটেটো, ব্রাজিলিয়ান নাট উইথ চকলেটসহ মজাদার সব খাবার। কথা হয় রাজধানী উত্তরার বাসিন্দা সুমন ইসলামের সঙ্গে। তিনি বলেন, ‘ব্রাজিল মানেই আমাদের কাছে ফুটবল। ফুটবলের দেশ হিসেবেই ব্রাজিলকে এত দিন চিনতাম। কিন্তু এ দেশের খাবারও যে এত মজাদার, এটা এই আয়োজনে এসে বুঝলাম।’ পরিবারের সবাইকে নিয়ে ব্রাজিলিয়ান উইক ফুড অ্যান্ড কালচারাল ফেস্টিভ্যালে এসেছিলেন ব্যবসায়ী মুমিনুর রহমান। পেলে, জিকোর নাম শুনে এবং রোমারিও, বেবেতো ও নেইমারদের খেলা দেখেই ব্রাজিলকে এত দিন সাপোর্ট করতাম। আজ দেশটির খাবার আর গান শুনে দেশটির প্রেমে পড়ে গেলাম। একেক জায়গার খাবার একেক রকম হবে এটাই স্বাভাবিক, কিন্তু ব্রাজিলের খাবার সত্যিই একটু অন্য রকম আর স্বাদও লোভনীয়।

আয়োজনে ব্রাজিলের সংগীতশিল্পী ইন্ডিয়ানা নোমার বিশেষ সংগীতানুষ্ঠানও আগতদের মাতিয়ে রেখেছিল। পুরো হোটেলেই ছিল ব্রাজিলের সংস্কৃতির আমেজ।

এই উৎসবের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ব্রাজিলের রাষ্ট্রদূত জোয়াও টাবাজারা অলিভিয়েরা জুনিয়ার, ডেপুটি হেড অব মিশন জুলিও সিজার সিলভা এবং ঢাকা রিজেন্সি হোটেল অ্যান্ড রিসোর্টের চেয়ারম্যান মুসলেহ আহমেদ, নির্বাহী পরিচালক শাহিদ হামিদ এফআইএইচ প্রমুখ।

২৫ এপ্রিল পর্যন্ত চলবে এই উৎসব। খাওয়া যাবে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা থেকে রাত সাড়ে ১০টা পর্যন্ত গ্র্যান্ডডিয়স রেস্টুরেন্টে।